আমার পেনড্রাইভ এ তো ইচ্ছা করেও ভাইরাস ঢুকাতে পারি না , আপনার টাও আমার মত করতে চান ?


পেনড্রাইভ বা মেমোরিকার্ড দিয়ে আমরা সাধারণত আমাদের বিভিন্ন প্রয়োজনীয় ডাটা আদান-প্রদান করে থাকি। আর এটি করতে গিয়েই ঘটে বিপত্তি! কখন যে আমাদের সাধের পেনড্রাইভে ভাইরাস ঢুকে যায়, আমরা বুঝতেই পারি না।
এই ভাইরাসের হাত থেকে মুক্তি পাবার জন্য আমরা সাধারণত অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করে থাকি। এর পাশাপাশি অটোরান ভাইরাস দূর করার জন্য USB Disk Security, Autorun Remover ইত্যাদি বিভিন্ন বাহারি সফটওয়্যারও অনেকেই ব্যবহার করে থাকে। অনেকক্ষেত্রেই এত সফটওয়্যার ব্যবহার করা সময়সাধ্য এবং বিরক্তিকর ব্যপার!!
যদি মাত্র ১ টি ক্লিক করেই আজীবণের জন্য এতসব ঝামেলা থেকে মুক্তি পাওয়া যেত, তাহলে কেমন হত???? শুনতেই খুব ভাল লাগছে তাইনা?? তাহলে ভাবুন বাস্তবে এমনটি হলে কতই না সুবিধা হত!!

পান্ডা এন্টিভাইরাসের নাম হয়ত অনেকেই শুনে থাকবেন। তারা একটি সফটওয়্যার বানিয়েছে এবং সেটির নাম দিয়েছে- Panda USB Vaccine. এটি সেটাপ করার পর একটি ক্লিক করলেই পেনড্রাইভ অথবা মেমোরিকার্ড Vaccinate হয়ে যাবে অর্থাৎ আপনার ফ্লাশড্রাইভে টিকা দেয়া হয়ে যাবে!! যাতে করে অটোরান ভাইরাসকে আপনি আর জোড় করেও ঢুকাতে পারবেন না।!!
আসলে এটি আপনার ফ্লাশড্রাইভে একটি Autorun.inf ফাইল তৈরী করবে। যা কোন অটোরান ভাইরাস ডিলেট করে আপনার পেনড্রাইভে ঢুকতে পারবে না। এমনকি রিপ্লেস বা রিনেম করাও সম্ভব নয়!! ফাইলটি আপনার ফ্লাশড্রাইভে হিডেন অবস্থায় থাকবে এবং আপনার পেনড্রাইভের “অটোরানের টিকা” হিসাবে কাজ করবে!! এছাড়া এটি দিয়ে মাত্র ১ ক্লিক করে  আপনার কম্পিউটারের সকল
 ফ্লাশডাইভের অটোরান করা বন্ধ করতে পারবেন!! যার ফলে কোন ফ্লাশড্রাইভ ঢুকানোর সাথে সাথে আর ভাইরাস আপনার পিসিতে ঢুকতে পারবে না!!
এটি একটি ফ্রি সফটওয়্যার, তাই সিরিয়ালের ঝামেলা নাই। টিকা দেয়ার পর সফটওয়্যারটি রিমুভ করে দিতে পারেন।

সবচাইতে বড় কথা এত কাজের একটি সফটওয়্যার এর সাইজ মাত্র ৮০০ কিলোবাইট!!
তাহলে আর দেরি না করে নিচের মত করে ব্যবহার করা শুরু করে দিনঃ-

১. প্রথমেই এখান থেকে Panda USB Vaccine ডাউনলোড করে এক্সট্রাক্ট করে নিন। (৮০০ কিলোবাইট)

২. এবার সাধারণ নিয়মে সবকিছু ডিফল্টে রেখে সেটাপ করুন।

৩. আপনার পেনড্রাইভ/ মেমোরিকার্ড ইউএসবি পোর্টে প্রবেশ করান এবং  সফটওয়্যারটি চালু করুন ।

৪.  সেখানে Select an USB Drive এ আপনার ফ্লাশড্রাইভটি দেখতে পাবেন। তার পাশেই দেখুন- Vaccinate USB নামে একটি বাটন আছে, সেটিতে ক্লিক করুন।

৫. ব্যাস কাজ শেয!! আপনার পেনড্রাইভকে টিকা দেয়া হয়ে গেছে। এবার নিচের ছবির মত দেখুন আপনার ফ্লাশড্রাইভের পাশে ব্রাকেটে Vaccinated লেখা আছে। যার মানে কাজ শেয!!

৬. এবার আপনি যদি আপনার কম্পিউটারের সকল ড্রাইভের অটরান ডিসেবল করে দিতে চান, তাহলে নিচের ছবির মত Vaccinate Computer বাটনে ক্লিক করুন। তাহলেই কাজ হয়ে যাবে।

৭. কম্পিউটার Vaccinated হয়ে গেলে  ইচ্ছা করলে সফটওয়্যারটি রিমুভ করে দিতে পারেন।

এবার টেস্ট করার জন্য নিজে নিজে একটি অটোরান ফাইল বানিয়ে আপনার পেনড্রাইভে সেন্ড করে দেখুনতো সেটি পেনড্রাইভে ঢুকাতে পারেন কিন?? ঢুকাতে পারলে জানাবেন কিন্তু!! হি হি !!!!

যারা অটোরান বানাতে পারেন না, তারা এখান থেকে আমার বানানোটা ডাউনলোড করে নিন (মাত্র ১KB)।
সব ফাইলের লিংক এখানে দেওয়া হল ।
Vaccinate USB :   

 
autorun :

টিউন টি কপি করা। ২০১১ তে এই টিউন টিটি তে করা হইছে ।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s