ইংরেজি ? গ্রামাটিকেল ভুলের ভয়? নিয়ে নিন সমাধান সাথে ফ্রী টিপস!

0

মাতৃভাষা বাংলা। অথচ বাংলাই ঠিক মত বলতে, লিখতে পারি না। সে জায়গায় সেই দূরদেশের ইংরেজি না পারাটাই স্বাভাবিক। হোক সে আন্তর্জাতিক ভাষা। জন্মের পর থেকে বাংলায় কথা বলি, বাংলায় শুনি, বাংলায় লিখি। ইংরেজি অত ভাল পারবো কি করে? আজকাল তো ইংরেজ রাই ঠিক মত ইংরেজি বলতে পারে না। আর আমরা তো… স্কুল কলেজে পড়েই কি ইংরেজি ভাল পারা যায় নাকি? আমাদের দেশের যে শিক্ষা ব্যবস্থা! মাস্টার্স পাশ করা একজন ছাত্র ও ২ লাইন ঠিক মত ইংরেজি বকতে পারে না। আর আজকাল কিছু ইংরেজ মাধ্যমে পড়ুয়া ছাত্র ছাত্রি আছে, যারা এত মাত্রায় ইংরেজি বকে যে ঠিক মত বাংলা বকা টাই ভুলে যায়! দুঃখজনক হলেও সত্য আমাদের দেশে প্রায় ৩০ ভাগ শিক্ষিত লোক আছে যারা মোটামোটি ঠিকঠাক ইংরেজি বকতে পারবে। বাকি ৭০ ভাগ শিক্ষিত হলেও, ইংরেজির বেলায় কচু!

আমাদের কথা কি বলবো? শুধু আমরা না তো, বিশ্বের অনেক উন্নত দেশের লোকেরাও ভাল ইংরেজি বলতে পারে না। হাতে গোনা কিছু লোক আছে দুর্বার ইংরেজি বকে! ইংরেজি না পারা বা ইংরেজি তে দুর্বল হওয়াটা খুবি স্বাভাবিক। এতে মন খারাপ করা বা ভেঙ্গে পরার কোন কারন নেই।

এতক্ষণ কথাগুলো লিখার কারন হচ্ছে সান্তনা দেয়া। আসলে অনেকেই ইংরেজি না পারায় নিজেকে অনেক ছোট মনে করে, ভেঙ্গে পরে। তাদের মনে সান্তনা যোগানোর জন্যই এই বকবকানি। সান্তনা তো দিলাম, এবার সাহস দিবে কে? উপায় নেই, এটাও আমাকে করতে হবে।

আসলে ইংরেজি কে আমরা যতটা কঠিন মনে করি, ততটা কঠিন ইংরেজি না। ইংরেজি ভয় করলেই ইংরেজি কঠিন! আমি ছোট থেকেই ইংরেজি কে ভয় করি না। তাই কখনোই ইংরেজি আমার কাছে কঠিন মনে হয় নি, আর এখন পর্যন্ত ইংরেজি তে ভালো আছি মাশাল্লাহ! আমি অনেক ভাল ইংরেজি পারি তা বলছি না! তবে অতটা খারাপ ও পারি না! ভুল আমারো হয়। হওয়াটাই স্বাভাবিক। আর সেই ছোট খাটো ভুল শুধরানোর উপায় নিয়েই আজকের টিউন। সাথে থাকবে সহজে ইংরেজি শেখার টিপস, ইংরেজির ভয়কে দূর করার টিপস, আরো অনেক কিছু! আর এসবই ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে। তাহলে চলুন নেমে পড়ি ইংরেজি শিকারে!

অনলাইনে ইংরেজি গ্রামার ভুল সংশোধন (মারাত্মক সমাধান)

হ্যা! আপনার লেখায় কি কি ইংরেজি গ্রামাটিকেল ভুল আছে সেগুলো ধরিয়ে দিতে আর সংশোধন করতে রয়েছে অনলাইন টুল। এসব টুল খুব নিখুঁত (খুব বেশি নিখুঁত না :P ) ভাবে আপনার গ্রামাটিকেল ভুল গুলো ধরিয়ে দিবে। তবে ভাইবেন না, এটা একজন মানুষের মত আপনার সব ভুল ধরিয়ে ঠিক করে দিবে! এটা সম্ভাব্য ভুল গুলো বলে দিবে, সেটা আসলেই ভুল কিনা আপনার বুঝে ঠিক করে নিতে হবে। ঠিক করার ক্ষেত্রে টুল টি সাজেশন দিবে। বুঝতেই পারছেন, আপনি এর সাহায্যে শুধু খুটিনাটি ইংরেজির ভুল গুলো ঠিক করতে পারবেন। আর ভুল ঠিক করতে করতেই অনেক কিছু শেখা হয়ে যাবে। তাহলে চলুন দেখে নেই টুল গুলোঃ

spellcheckplus.com

এটা আমার প্রিয় টুল। আমি সবসময় এটাই ব্যবহার করি। ব্যবহার করতে সহজ, মোটামোটি ভাল কাজ করে! এর সমন্ধে বিস্তারিত লিখলাম না, আশা করি কাজ করতে পারবেন।

spellchecker.net/spellcheck

grammarcheck.me

spellcheckonline.com

grammarcheck.net/editor

টুল তো গেল, কিন্তু টুল এর উপর আর কতটুকু ভরসা করা যায়? নিজে তো কিছু শিখতে হবে নাকি? তাহলে চলুন ইংরেজি শেখার কিছু টিপস জেনে নেয়া যাক। এগুলো আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা আর ব্যক্তিগত মতামত।

ইংরেজির ভূত! তারাবেন যেভাবে

ইংরেজিতে দুর্বল হওয়া বা ইংরেজি না পারার প্রধান ও বিশেষ এবং আন্তর্জাতিক কারন হল ইংরেজির ভূত। এই ভূত এর ভয়েই অনেকে ইংরেজি পারে না, বা ইংরেজি তে দুর্বল হয়। আসলে এটা মনের ভয় ছাড়া কিছুই না! আমি আগেও বলেছি, ইংরেজি কে আমরা যতটা কঠিন মনে করি ইংরেজি বেচারা ততটা নিষ্ঠুর কঠিন না। নিজ থেকেই নিজের মনকে বুঝিয়ে নিতে হবে। মন থেকে ইংরেজি কে ভালবাসতে হবে। তাহলে ধীরে ধীরে ইংরেজির ভূত আপনার থেকে দূর হয়ে যাবে। ইংরেজি থেকে যতই দূরে সরবেন, যতই ঘৃণা করবেন ইংরেজির ভূত ততই আপনাকে ছিরে ছিরে খাবে। এর চেয়ে ভাল বরং ইংরেজি কে ভালবাসুন, ইংরেজির কাছাকাছি থাকুন। ইংরেজির ভয় আপনা আপনি মন থেকে চলে যাবে।

ইংরেজি শেখার সেরা উপায়?

আমি জানি এটা নিয়ে দ্বিমত আছে। একেক জনের একেক পছন্দ বা মন্তব্য! কেও বলবে স্কুল কলেজের বই পরলেই ইংরেজি ভাল পারা যায় (বিশেষ করে স্কুল কলেজের শিক্ষক রা :P ) কেও বলবে ইংরেজি তে মাস্টার্স করলে ভাল ইংরেজি পারা যায়। কেও বলবে IELTS করতে, কেও বলবে বিদেশে উচ্চ শিক্ষা নিতে। কেও বলবে দরবেশ বাবার পরা পানি খেতে। আসলে মানুশ ভেদে মতের ভিন্নতা।

তবে আমার মতে ইংরেজি শেখার সেরা উপায় হচ্ছে “নিজে শেখা” জানি এটা শুনে ইতি মদ্ধেই হাওকাও লেগে গেছে। নিজে কিভাবে শিখে? শিক্ষক ছাড়া ইংরেজি শেখা যায় নাকি? আরো কত কি… আসলে ব্যপার টা এইরকম- নিজে শেখা মানে নিজের ইচ্ছায় শেখা। শিক্ষক, বই, ইত্যাদির সাহায্য অবশ্যই নিবেন। তবে অবশ্যই স্বেচ্ছায় শেখার জন্য। কারো জোর জবরদস্তি বা কোন শখের করাতে পরে নয়। ইংরেজি পরিক্ষায় পাস করার জন্য নয়, জীবনে পাস করার জন্য শিখুন। তাহলেই ইংরেজি শিখতে পারবেন।

ইংরেজি শেখার ভয়ংকর টিপস

আসলেই ইংরেজি শিখতে চান? স্বেচ্ছায় তো? নাকি স্যার, বাবা-মার জোরে? ঠিক আছে, স্বেচ্ছায় যেহেতু শিখতে চান তাহলে কিছু টিপস নিয়ে নেনঃ

  • নিয়মিত ইংরেজি পেচাল পারুন। ভুল হোক, আর ঠিক হোক। ফাও পেচাল পারতে থাকেন।
  • লজ্জা শরম সব সার্ফ এক্সেল দিয়ে ধুয়ে নেন। কারণ ইংরেজি শিখতে চাইলে লজ্জা শরম এর মাথা খেতে হয়। রোজা রমজানের দিনে মাথা খাওয়ার চেয়ে ধুয়ে ফেলা ভাল।
  • বন্ধু, বান্ধবী, বাবা-মা, শিক্ষক, আত্মীয়, অচেনা পথিক, ছোট ভাই, বড় ভাই সবার থেকে নির্দ্বিধায় সাহায্য নিন। যেকোনো সমস্যায় তাদের প্রশ্ন করুন। (অবশ্যই যে ইংরেজি তে ভাল তাকে প্রশ্ন করবেন, নয়তো অনন্ত জলিল হয়ে যেতে পারেন)
  • বন্ধুদের সাথে যত পারবেন ইংরেজিতে বকবকাবেন, কারণ এদের সাথে ভুল করলেও সমস্যা নেই। বন্ধু বান্ধবের কাছে সাত খুন মাফ! এছাড়া আমার জানামতে একমাত্র বন্ধুদের কাছেই আমাদের লজ্জা বলে কিছু নেই। সুতরাং…
  • নিয়মিত ইংরেজি পত্রিকা পরুন। অনলাইনে হোক আর অফলাইনে। কিচ্ছু বুঝেন নাহ? বুঝার দরকার নাই, মনে করেন কোন এক ২ বছরের বাচ্চা পেন্সিল দিয়া দাগাদাগি করছে। চোখ বুলায় জান। (একদিন না একদিন, একটা না একটা পরিচিত শব্দ চোখে পরবে আর সে থেকেই আগ্রহ বারবে)
  • নিয়মিত ইংরেজি চলচিত্র দেখুন। ইচ্ছা না থাকলেও দেখতে হবে, কিছু করার নাই। তবে সুবিধার্তে একটু বাছাই করে সুশীল চলচিত্র দেখতে পারেন।
  • বিভিন্ন ইংরেজি অনুষ্ঠান গুলো দেখুন। যেমনঃ Man VS Wild (আসলে, মানুষ বনাম পোকা), Worst case scenario, ইত্যাদি আরো মজাদার অনুষ্ঠান।
  • ইংরেজ বক্তাদের কথা শুনুন। কিচ্ছু বুঝেন নাহ? সমস্যা নাই, শুনতে থাকেন। মনে করেন ২ বছরের বাচ্চা হাওমাও কইরা কথা বলা শিখতেছে। শুনতে শুনতে নিজেই বোঝা শুরু করবেন। যেমন একজন মা তার সন্তানের আধো আধো কথাই পুরো বুঝতে পারেন অন্য কেও বুঝতে না পারলেও।
  • ইংরেজিতে যখন একটি বক্তব্য শুনবেন সাথে সাথেই সেটা মনে মনে আওড়াতে থাকুন। এবং ভাবুন এটা কেমন বক্তব্য? কোন সময়ে এটা প্রয়োগ করা যায়? ওইরকম একটা সুযোগ বুঝে বক্তব্য টা ছুঁড়ে মারুন। একটু হিট বক্তব্য হলে নিশ্চিত আপনার আশে পাশের লোকজন (সম্ভবত বন্ধু বান্ধব) আপনার দিকে হেলিকপ্টার এর মত তাকাবে! মানে কয়েক মিনিটের জন্য অন্তত আপনি হিরো ;)
  • টুকটাক বই, ডিকশনারি পড়াশোনা করুন। প্রতিদিন একটু একটু ইংরেজি শব্দ, বাক্য শিখতে থাকুন। আর যাই শিখবেন সেটা পরদিনই যে করেই হোক বাস্তব জীবনে প্রয়োগ করবেন।

মোশাররফ করিম এর একটা নাটক আছে, ঠিক মনে পড়তেছে না। সম্ভবত হাউজফুল এ মোশাররফ করিম ইংরেজি শিখতে চায়। যারা নাটক টা দেখেছেন, তারা হয়তো বুঝতে পারছেন :D অনেকটা তার মতই বেহায়া হতে হবে ইংরেজি শিখতে হলে। যদিও নাটকে তার চরিত্র কে অনেকটা জোকার হিসেবে দেখিয়েছে, তবে ইংরেজি শেখার ক্ষেত্রে তার আচরনই ঠিক :D

আরো অনেক টিপস হয়তো আছে, কিন্তু ডুব দিয়ে আছে, সাতার কাটতেছে নাহ:/ দেখি ভেসে উঠলে জানিয়ে দিবো। আর আপনার জানা কোন টিপস থাকলে টিউমেন্ট এর ঘর আপনার জন্য খালি পরে আছে, হুটহাট টাইপ করে ধুপধাপ পোস্ট করে দিন।

আপনার ইংরেজি শেখার অভিযানে শুভকামনা! (y)

টিউনটা মজাদার করার জন্য অনেক ধরনের ভাষা, অনেক উদাহরণ, অনেকের নাম ইত্যাদি ব্যবহার করেছি। আশা করি কেও ব্যক্তিগত ভাবে নিবেন না। অজান্তে কাওকে আঘাত দিয়ে থাকলে দুঃখিত।


দেখে নিন এক চেহারার কতগুলো ছবি আছে আপনার কম্পিউটারে

0

দেখে  নিন আপনার কতগুলো ছবি আছে আপনার কম্পেউটারে (যারা স্টুডিওতে কাজ করেন তাদের জন্য জরুরি)

যারা ফটোশপে কাজ করেন তাদের অনেক সময় দরকার হয় যে একজনের একের অধিক আরও কোন ছবি ৤

সফ্টওয়্যাটা  এখান থেকে ডাওনলোড করে নিন

সফ্টওয়্যারটা ওপেন করে কোন একটা ছবি ওপেন করে search করুন অথবা কোন একটা ফোলডার ছিলেক্ট করে search করুন আর  মজা দেখুন চেহারার কোন মিল থাকলে চলে আসবে

এই ধরনের আরেকটি সফ্টওয়্যার যা দিয়ে আপনি আপনার কম্পিউটারে একটা গান 1 বারের বেশি আছে কি না ৤

সফ্টওয়্যারটা এখান খেকে ডাওনলোড  করে নিন ৤

Copied..Techtunes

কোন প্রকার সফটওয়্যার ব্যাবহার ছাড়াই পাসওয়ার্ড প্রোটেকশান রাখুন আপনার USB Drive

0

আজকে আমি আপনারদের USB Drive নিয়ে সাধারণ একটা ট্রিকস দেখাবো। আসলে অধিকাংশ মানুষই পছন্দ করে না যে কেউ তাদের পেন-ড্রাইভ নিয়ে তার পার্সোনাল ফাইলটায় ঘাটাঘাটি করুক। সুতরাং এই রকম অনিরাপদ পরিস্থিতিতে যে কেউ আপনার পেন-ড্রাইভ নিয়ে ব্যাক্তিগত তথ্য চুরি করতে পারে। এই পরিস্থিতিতে আপনি যদি আপনার পেন-ড্রাইভে প্রোটেকশান রাখেন, তাহলে এই তথ্য চুরি অনেকাংশেই কমে যাবে।

এই কারণে অনেক পাসওয়ার্ড প্রোটেকশান সফটওয়্যারই বাজারে পাওয়া যায়। কিন্তু এগুলো ফ্রী নয়, কিনে ব্যাবহার করতে হয়। কিন্তু আমরা বেশির ভাগ মানুষই অবৈধভাবে বিভিন্ন উপায়ে ব্যাবহার করে থাকি। তাই আজ আমি আপনাদেরকে দেখাবো কিভাবে কোন প্রকার সফটওয়্যার ব্যাবহার ছাড়াই আপনার USB Drive পাসওয়ার্ড প্রোটেকশান করে রাখবেন।

আগে একটা কথা বলে রাখি এটা আমি Windows 7 এর ক্ষেত্রে ব্যাবহার করেছি। Windows Xp ক্ষেত্রে এটা চলবে কিনা আমি জানি না।

যাই হোক, অনেক কথা বলেছি, এবার চলুন কাজ শুরু করি।

  • প্রথমে Start এ ক্লিক করুন। তারপর নিচের সার্চ বক্সে টাইপ করুন Bitlocker Drive Encryption.

  • প্রথম Application টা Open করুন।

  • তারপর Control Panel এই Window টা আসবে।

  • এখানে আপনি আপনার সব ড্রাইভ দেখতে পাবেন। যেহেতু USB Drive এ পাসওয়ার্ড দিবেন তাই যে কোন একটা USB Drive Select করে পাশের Turn on Bitlocker এ ক্লিক করুন। নিচের চিত্রে দেখুন আমি একটা USB Drive Select করলামঃ

  • তারপর এই Window টি সবে সেখানে আপনাকে পাসওয়ার্ড লিখতে হবে। আপনার মনের মত একটি পাসওয়ার্ড দিন। নিচের চিত্রের মত কাজ করে তারপর Next এ ক্লিক করুন।

  • তারপর এই Window টা আসবে। আপনি যদি আপনার পাসওয়ার্ড ভুলে যান তাহলে Recovery Key দিয়ে পাসওয়ার্ড ছাড়িয়ে নিতে পারবেন। এজন্য Save the recovery to a file এ ক্লিক করে কম্পিউটারের যেকোনো জায়গায় Recovery Key Save করে নিন। তারপর Next এ ক্লিক করুন।

  • তারপর নিচের যে পেজ আসবে সেখানে Start Encrypting এ ক্লিক করুন।

  • তারপর Encrypting হতে থাকবে। এতে কিছু সময় নিবে। কিছু সময় অপেক্ষা করুন।

  • সবশেষে নিচের Dialogue Box টি আসবে। Close এ ক্লিক করুন।

  • ব্যাস! কাজ শেষ! এইবার আপনার USB Drive কম্পিউটার থেকে একবার খুলে আরেকবার লাগিয়ে দেখুন এরকম পাসওয়ার্ড চাচ্ছে।

  • এখানে I forgot my password এ ক্লিক করে Recovery Key দিয়ে পাসওয়ার্ড ছাড়িয়ে নিতে পারবেন।

পাসওয়ার্ড কেটে আবার আগের মত ফিরিয়ে আনতে আবার Start এ যেয়ে সার্চ বক্সে BitLocker Drive Encryption লিখে আগের মত যে Window Open হবে সেখানে USB Drive এর পাশে Turn Off BitLocker এ ক্লিক করে আবার পাসওয়ার্ড ছাড়িয়ে নিন। ব্যাস, হয়ে গেল।

 

Link: Techtunes

“শর্টকাট ভাইরাস সমস্যা ও সমাধান | ShortCut Virus Remover”

0

অনেক কষ্ট করে কারো কাছ থেকে প্রয়োজনীয় ডাটা আনলেন কিংবা কাউকে ডাটা কপি করে দিলেন। কিছুক্ষণ পরে দেখা গেল আপনার সেই প্রয়োজনীয় ডাটা গুলো সব উধাউ! আছে শুধু ধ্বংসাবশেষ মানে সেই ডাটা গুলোর কিছু শর্টকাট ফোল্ডার। শর্টকাটে ক্লিক করলেন কিন্তু কনো ডাটা নেই! আপনার এন্টিভাইরাস দিয়ে স্ক্যান করলেন কিন্তু কনো ভাইরাস পেলেন না। ড্রাইভের প্রোপারটিজে দেখলেন সেখানে ডাটা কপি করার পর যে সাইজ ছিল এখনো সেই সাইজই আছে! কিন্তু ডাটা গুলো নেই! মাথাটা তো পুরাই নষ্ট তাইনা? এখন কি করবেন?

শর্টকাট ভাইরাস!! জী ভাই…এইসব কান্ড-কারখানা যিনি করতেছেন সেই ভদ্রলোকটির নাম শর্টকাট ভাইরাস। পেন্ড্রাইভে, পোরট্যাবল হার্ডডিস্কে বা যেকোনো রিমুভ্যাবল ডিভাইসে করে যারা ডাটা কপি বা শেয়ার করে থাকেন তাদের কম্পিউটারে এই ভদ্রলোকটি প্রায়ই বেড়াতে আসেন এবং সাথে গিফট হিসেবে আপনার জন্য নিয়ে আসে অনেক যন্ত্রনা!

তো আসুন এই শর্টকাট ভাইরাস ভদ্রলোকটির সম্পর্কে একটু জানা যাকঃ

এটি আসলে একটি Latent Trojan Virus (সুপ্ত ট্রোজান ভাইরাস)। Latent Trojan Virus এইজন্যে বলা হয় কারন এদেরকে কোন এন্টিভাইরাস সহজে ডিটেক্ট করতে পারে না। এরা ততক্ষণ পর্যন্ত ছড়ায় না যতক্ষণ না পর্যন্ত আপনি শর্টকাটে ক্লিক করবেন। একবার যদি ভুলেও শর্টকাটে ক্লিক করে ফেলেন তাহলে এই ভাইরাস আপনার পুরো ড্রাইভে ছড়িয়ে যাবে এবং আপনার ডাটা গুলো সব হাইড করে ফেলবে।

এই ভাইরাসটি মূলত কিভাবে কাজ করে?

এটি আপনার ফাইলের Attribute এবং আপনার ফাইলের Location (পথ) চেইঞ্জ করে হাইড করে ফেলে এবং আপনার ফাইলটির একটি ফেইক শর্টকাট তৈরি করে। যার ফলে আপনার ড্রাইভের সাইজ ঠিকই থাকে কিন্তু ডাটা গুলো উধাউ হয়ে যায়।

এধরনের ভাইরাস থেকে বেঁচে থাকতে পূর্ব সাবধানতাঃ

  • প্রথমেই যে ড্রাইভে ডাটা কপি করবেন বা যে ড্রাইভ থেকে ডাটা নিবেন সেই ড্রাইভটি এন্টিভাইস দিয়ে স্ক্যান করে নিন।
  • ডাটা কপি করার সময় চেষ্টা করবেন যে ড্রাইভে ডাটা কপি করবেন সেই ড্রাইভে না ঢুকে Copy to অপশন দিয়ে সরাসরি সেই ড্রাইভে ডাটা সেন্ড করতে।
  • সন্দেহজনক নামের কোন ফাইল দেখলে তাতে ভুলেও ক্লিক করবেন না। কেননা ভাইরাস ততক্ষণ পর্যন্ত ছড়ায়না যতক্ষণনা পর্যন্ত আপনি ভাইরাসের উপর ক্লিক করবেন।

ভাইরাসে আক্রান্ত হবার পরে কি করবেন?

নো চিন্তা ডু ফুর্তি! এই ভদ্রলোককে ধ্বংস করার জন্য আমি একটি ছোট প্রোগ্রাম তৈরি করেছি ShortCut Virus Remover V-1.0, এটা ব্যাবহার করুন।
সফটওয়্যারটি নিচের লিঙ্ক থেকে ডাউনলোড করুন-

http://www.mediafire.com/download/miy6kyzm72j2wt5/ShortCut_Virus_Remover.rar

সফটওয়্যারটি ব্যাবহার প্রনালীঃ

  • প্রথমে ডাউনলোড করা RAR ফাইলটি Extract করুন। Extract করার জন্য WinRAR ব্যাবহার করতে পারেন। না থাকলে এই লিঙ্ক  http://www.mediafire.com/download/uwfbf5y2p5meb13/WinRAR_3.71_PreCracked_Smileplease.exe থেকে ডাউনলোড করে নিন এবং সেটাপ দিন।
  • Extract করার পর ফোল্ডারে ২ টি ফাইল পাবেন।

১. ShortCut Virus Remover

২. iReset

  • যে ড্রাইভে শর্টকাট ভাইরাস গুলো রয়েছে সেই ড্রাইভে ShortCut Virus Remover সফটওয়্যারটি রাখুন এবং ডাবল ক্লিক করে রান করান।
  • প্রোগ্রামে প্রদর্শিত Instruction অনুযায়ী কাজ করুন।
  • কিছুক্ষণের মধ্যেই প্রোগ্রামটি তার কাজ শেষ করবে এবং আপনার হাইড হওয়া ডাটা গুলো আবার আগের মতো আপনার ড্রাইভে চলে আসবে। কাজ হয়ে গেলে প্রোগ্রামটি ক্লোজ করে দিন।
  • এবার ড্রাইভে যদি আপনার সেই ডাটা গুলো বাদে অতিরিক্ত বা সন্দেহজনক কোন ফাইল/ফোল্ডার থাকে তাহলে সেগুলো ডিলিট করে দিন।

ব্যাস কাজ শেষ! ভাইরাস গুলোর ইন্নাল্ললাহ হয়ে গেলো!

এরপর আপনার ড্রাইভের ডাটা ফোল্ডার গুলোর Attribute ও Location আগের মত করার জন্য iReset সফটওয়্যারটি ওপেন করুন এবং নিচের মত কাজ করুন-

  • আক্রান্ত ড্রাইভের একটি ফোল্ডারের উপর মাউসের লেফট বাটন দিয়ে ক্লিক করে চেপে ধরে iReset সফটওয়্যারটির (+) চিহ্ণিত স্থানে ছেড়ে দিন।
  • এরপর Reset বাটনে ক্লিক করুন।
  • এভাবে প্রতিটি ফাইল/ফোল্ডার Reset করুন। এতে করে আপনার ডাটা ফাইল/ফোল্ডার গুলোর Attribute ও Location আগের মত হয়ে যাবে!

ব্যাস! কাহিনী শেষ!

From Tech-tunes

PHP(পিএইচপি কোচিং)

0

Just for self Learning.

এখন কারেন্ট নিউজ দেখুন আপনার ডেস্কটপে !

0

Ads by Techtunes – tAds

পিসিতে নেট আছে অথচ নিউজ সাইট গুলো ভিজিট করেন না এমন খুব একটা দেখা যায় না । আমি আজ আপনাদের সবার জন্য নিয়ে এসেছি একটা চমৎকার নিউজ Tickr অ্যাপ, যা ব্যবহার করলে কোন সাইট ব্রাউজ না করেও সরাসরি আপনার ডেক্সটপ এ স্ক্রল হিসেবে সব শেষ হেডলাইন গুলো দেখতে পারবেন।

এই অ্যাপ টির নাম হল Desktop Tickr,    ডাউনলোড 

৩৭১ কিলোবাইট এর ছোট্ট অ্যাপটি ডাউনলোড হয়ে গেলে যথারীতি ইন্সটল করুন। তারপর নিচের ধাপ গুলো অনুসরণ করুন ।

  • অ্যাপটি ওপেন করুণ , (একটা ডিফল্ট টিকার আসবে এটাকে কনফিগার করতে হবে)
  • বামপাশে মেনু বাটনে ক্লিক করে File -> Manage Feed এ প্রবেশ করুন
  • এখন RSS News Feed লাগবে, তাই আপনার পছন্দনীয় Feed Url দিয়ে Add প্রেস করুণ।
  •  যেমন BdNews 24 এর জন্য http://bdnews24.com/?widgetName=rssfeed&widgetId=1150&getXmlFeed=true
  • BdNews24 Home নামে নতুন Feed টি টিকমার্ক করে ওকে প্রেস করে বের হয়ে আসুন।
  • তারপর Tools -> Dock -> Bottom চেপে ডেস্কটপে ডক করুন।
  • তাছাড়া Tools-> Option এর মাধ্যমে আপনি এর Colour, Opticity, Update Time পরিবর্তন করতে পারেন।

(Copied From Tech-Tunes)